সুন্দর করে কথা বলা একটি ভালো অভ্যাস। সব শিশু সুন্দর ও মার্জিতভাবে কথা বলতে পারে না। অনেক শিশুরা কথা বলতে লজ্জা পায়। আবার কেউ কেউ অতিরিক্ত কথা বলে। কীভাবে বুঝবেন আপনার সন্তান অতিরিক্ত কথা বলে? যখন সে একটির পর একটি কথা অনবরত বলে যায় কোনো প্রকার বিরতি ছাড়া, তখন বুঝবেন সে অতিরিক্ত কথা বলে।

অতিরিক্ত কথা বলা; Source: NTV

অতিরিক্ত কথা বলার খারাপ ও ভালো দুইটি দিক রয়েছে। যারা বেশি কথা বলতে ভালোবাসে তারা অনেকের সাথে সহজে মিশতে পারে। তাদের যোগাযোগ দক্ষতা বেশ ভালো হয়। তারা সবসময় আনন্দ পেতে এবং অন্যদের আনন্দ দিতে ভালোবাসে। তারা অন্যকে সঙ্গ দিতে ভালোবাসে, কখনো মুখ গোমড়া করে থাকতে পারে না। তারা বেশ আশাবাদী স্বভাবের হয়ে থাকে এবং সব পরিবেশের সাথে মানিয়ে চলতে পারে।

বন্ধুপরায়ন শিশু; Source: Mamamia

খারাপ দিকগুলো হলো অতিরিক্ত কথা বলার ফাঁকে শিশুরা পরিবারের সবকিছু, এমনকি গোপন কথা অন্যদের কাছে প্রকাশ করে দেয়। তারা সহজে চুপ করতে চায় না, তারা অন্যের কথা শুনতে চায় না, অন্যকে প্রশ্ন করতে করতে ক্লান্ত করে দেয়। বেশি কথা বলা মানুষ অনেকেই পছন্দ করে না। কারণ অতিরিক্ত কথা শুনতে অনেকে বিরক্ত হয়।

তবে বাচাল সন্তানকে নিয়ন্ত্রণে আনা যায়। আপনার বাঁচাল সন্তানকে সামলাতে পারবেন কিছু কৌশল অবলম্বন করলে। জেনে নিন যেভাবে অতিরিক্ত কথা বলা সন্তানকে নিয়ন্ত্রণে রাখবেন তা সম্পর্কে।

তাকে কথা বলতে
দিন

আপনার সন্তান যদি বেশি কথা বলতে চায় তাহলে তাকে কথা বলার সুযোগ দিন। কথা বলা প্রতিটি মানুষের অধিকার। আপনি যদি তার কথায় বাধা সৃষ্টি করেন এবং তাকে নিয়ে উপহাস করেন তাহলে তার আত্মসম্মানে আঘাত হানবে। সে লজ্জা পাবে। শিশুরা ছোট হলেও তাদের আত্মসম্মান ও আত্মমর্যাদা রয়েছে। তারা কোনোভাবে আত্মসম্মান খোয়াতে চায় না।

শিশুর সঙ্গে কথা বলা; Source: Motherhood In-Style Magazine

আপনি তাকে কথা বলার সুযোগ দিন এবং তার কথায় গুরুত্ব দিন। সে আপনার কাছে যেসব প্রশ্ন করে সেগুলোর যথাযথ উত্তর প্রদান করুন। সে আপনার কাছে গ্রহণযোগ্যতা চায়। সে বুঝতে চায় আপনি তার কথা মনোযোগ দিয়ে শুনছেন। তাই শিশুর কথা মনযোগ দিয়ে শুনুন এবং কোন প্রকার বাধা সৃষ্টি করবেন না।

নির্দিষ্ট সীমানা
বেধে দিন

শিশুরা তো কথা বলবেই। বিশেষ করে ছেলেদের তুলনায় মেয়েরা বেশি কথা বলে। মেয়েরা নিজেদের সবকিছু প্রকাশ করতে ভালোবাসে। আপনার সন্তান যদি অতিরিক্ত কথা বলে তাহলে তাকে নির্দিষ্ট সীমানা বেধে দিন। তাকে বোঝান সব কথা সবার সামনে বলতে নেই। সব কথা সবার সামনে বললে নিজের মর্যাদা নষ্ট হয়। মানুষের ব্যক্তিগত ও গোপন কিছু কথা থাকে সেগুলো অন্যদের কাছে বলতে হয় না।

নির্দিষ্ট সীমানা; Source: FirstCry Parenting

আপনার শিশুকে শিখিয়ে দিন কতটুকু মানুষের কাছে প্রকাশ করতে হয় আর কতটুকু প্রকাশ করতে হয় না। তাছাড়া সমাজে চলতে গেলে অনেক মানুষের সাথে মিশতে হয়। শিশুরা অন্যের অনুকরণ করতে পছন্দ করে। অন্যের মুখে শোনা খুব বাজে কথা কিংবা গালি যেন আপনার শিশু আত্মস্থ না করে সে ব্যাপারে তাকে সতর্ক করুন। নয়তো আপনার সন্তানকে কুপ্রভাব থেকে রক্ষা করতে পারবেন না।

চুপ থাকার খেলা

শিশু যখন অতিরিক্ত কথা বলে তখন তাকে বকাঝকা না করা উত্তম। বকা দিলে শিশুরা কষ্ট পায়। তাদের মানসিকতায় বিরাট প্রভাব পড়ে। মারধোর করে, প্রহার করে কাউকে কোনো কিছু শেখানো যায় না। শেখাতে হয় আদর দিয়ে, ভালোবাসা দিয়ে। তাই আপনার বাচাল সন্তানকে চুপ থাকার খেলা খেলতে দিন।

চুপ থাকা; Source: Parents Magazine

সে যখন বেশি কথা বলবে তখন আপনি চট করে একটি খেলার কথা মনে করিয়ে দিতে পারেন। আর সেটি হলো চুপ থাকা। যে যত বেশি সময় ধরে চুপ থাকতে পারবে সে হবে বিজয়ী। রোজ রোজ এমন অভ্যাস করলে কাজে আসতে পারে। তাছাড়া আপনার সন্তানকে অতিরিক্ত কথা বলার নেতিবাচক দিক সম্পর্কে ধারণা দিন। মাত্রাতিরিক্ত কথা যারা বলে তাদের মানুষ বাচাল বলে সে সম্পর্কে তাকে জানান।

চোখে চোখ রাখুন

আপনার সন্তান যখন কথা বলবে তখন তার চোখে চোখ রাখুন। তার দিকে ঝুঁকে বসুন। তাহলে সে আপনার সাথে কথা বলে মজা পাবে। আপনার কম্পিউটার স্ক্রিন, মোবাইল স্ক্রিন ইত্যাদি সব বন্ধ করে তার সাথে যোগাযোগ করুন। তার মনের যত অভিযোগ, অনুযোগ, ভালো কথা রয়েছে সব শুনুন। আপনি যখন তার কথায় বিশেষ মনোযোগ দেবেন তখন সে আপনার প্রতি ঝুঁকে পড়বে এবং পরবর্তী সময়ে আপনি তাকে চুপ থাকতে বললে সে চুপ থাকবে।

আপনার সন্তান যখন কথা বলবে তখন তার চোখে চোখ রাখুন। তার দিকে ঝুঁকে বসুন। তাহলে সে আপনার সাথে কথা বলে মজা পাবে। আপনার কম্পিউটার স্ক্রিন, মোবাইল স্ক্রিন ইত্যাদি সব বন্ধ করে তার সাথে যোগাযোগ করুন। তার মনের যত অভিযোগ, অনুযোগ, ভালো কথা রয়েছে সব শুনুন। আপনি যখন তার কথায় বিশেষ মনোযোগ দেবেন তখন সে আপনার প্রতি ঝুঁকে পড়বে এবং পরবর্তী সময়ে আপনি তাকে চুপ থাকতে বললে সে চুপ থাকবে।

গল্পের বই পড়ায়
উৎসাহিত করা

আপনি যদি আপনার বাচাল সন্তানকে নিয়ন্ত্রণে আনতে চান তাহলে তাকে সময় দিন। শিশুকে সামলানোর জন্য আপনার উচিত তাকে গল্পের বই কিনে দেওয়া। গল্পের বই থেকে সে কী কী শিখেছে সে উত্তর আপনি তার কাছ থেকে জানুন। মাত্রাতিরিক্ত অন্য সকল কথা বলার চেয়ে গল্প পড়ে তা ব্যাখা করা খুব ভালো।

গল্পের বই পড়া; Source: Learning Liftoff

আপনি তাকে শিক্ষামূলক গল্পের বই কিনে দিতে পারেন। ঈশপের শিক্ষামূলক গল্প, সিন্ড্রেলার গল্প, বাঘ ও হাতির গল্প, মজাদার বিভিন্ন গল্পের বই কিনে দিন। প্রতি সপ্তাহে একটি বা দুইটি গল্পের বই পড়তে দিন এবং বই পড়ে সে কী শিখতে পেরেছে সেটি জানুন।

শোধরানোর জন্য
সময় নিন

অতিরিক্ত কথা বলা শিশুকে নিয়ন্ত্রণ করা খুব সহজ নয়। এর জন্য আপনাকে ধৈর্য্য ধারণ করতে হবে। আপনার সন্তানকে রোজ পড়াশুনা করা, টেলিভিশন দেখা, গান শোনা ও সিনেমা দেখার সময় নির্দিষ্ট করে দিন। তাকে অযথা বেশি কথা বলা থেকে বিরত রাখতে গান শুনতে, ভালো সিনেমা দেখতে উৎসাহিত করুন।  

Featured Image Source: Care.com

লেখক – Rikta Richi

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here