পৃথিবীতে সন্তান জন্মদান করা সৃষ্টিকর্তার অশেষ রহমতস্বরূপ। কেউ চাইলেই সন্তান জন্মদান করতে পারে না যদি না সৃষ্টিকর্তা চায়। নানা শারীরিক সমস্যার কারণে অনেক দম্পতি সন্তান জন্ম দিতে অক্ষম হয়। জীবন চলমান। এই চলমান জীবনকে সুন্দর ও সুখময় করে তুলতে প্রয়োজন সন্তান।

অনেক দম্পতি নিজের ঘরে সন্তান না হলে দত্তক নিয়ে সন্তান পালন করে। সবসময় দত্তক পাওয়া যায় না। আবার দত্তক নেয়া সন্তানকে ভরসা করা যায় না। কেননা রক্তের বন্ধন থাকে না। তাই দত্তক নেয়া সন্তান আসলে কতটা তাদের সাথে খাপ খাইয়ে উঠতে পারে সেটিও ভাবনার বিষয়।

দত্তক নেয়া সন্তান; Source: Parenting

পুরুষতান্ত্রিক সমাজে কন্যা সন্তানকে অবজ্ঞা অবহেলা করা হয়। আজকের এই পর্যায়ে এসেও মানুষের মানসিকতার উন্নয়ন ঘটেনি। যার ফলে কোনো দম্পতির দুই তিনজন কন্যা সন্তান হলেও চতুর্থবারের মতো গর্ভধারণ করে পুত্র সন্তান লাভের আশায়। কিন্তু পুত্র সন্তান লাভে ব্যর্থ হলে তারা ভাবে অন্য কারো পুত্র দত্তক নিতে। অনেকে টাকা প্রদান করে হলেও পুত্র সন্তান দত্তক নিতে চায়।

হতাশাগ্রস্থ শিশু; Source: momjunction.com

দত্তক নেয়া সন্তানের সাথে বাবা মায়ের বন্ধন আদৌ কি গভীর হতে পারে? তবে হ্যাঁ, শিশুর জন্মের সাথে সাথে যদি দত্তক নেয়া যায় তাহলে সন্তান আসল বাবা মাকে চিনতে পারে না এবং দত্তক নেয়া বাবা মায়ের ওপর আস্থা বিশ্বাস গড়ে ওঠে। তাদের সাথে সখ্যতা গড়ে ওঠে।

কিন্তু বড় বাচ্চাদের দত্তক নিলে তারা সহজে নতুন বাবা মাকে আপন করতে পারে না। শিশুর মধ্যে হতাশা, নিঃসঙ্গতা কাজ করে। তাছাড়া তাদের একাডেমিক রেজাল্ট খারাপ হয়। নতুন বাবা মায়ের সাথে দূরত্বের দেয়াল সৃষ্টি হয়। এছাড়াও আরো কিছু প্রভাব রয়েছে।

খারাপ ফলাফল

দত্তক নেয়া শিশুর পড়াশুনার মান আগের চেয়ে খারাপ হয়ে যেতে পারে। কারণ দত্তক নেয়া সন্তানেরা বাবা মায়ের কাছ থেকে পূর্ণ সমর্থন লাভ করে না। তারা অনেকটা অবহেলা সহ্য করে কিংবা নিজে নিজে হীনমন্যতায় ভোগে। দত্তকবিহীন সন্তানেরা যেমন অংক, বাংলা, ইংরেজী, সাধারণ জ্ঞানকে খুব সহজে আয়ত্ত করতে পারে, দত্তক নেয়া সন্তানেরা তা পারে না।

তবে নতুন বাবা মা যদি দত্তক নেয়া সন্তানের প্রতি পূর্ণ মনোযোগী থাকে তাহলে ভালো ফলাফল করানো সম্ভব। দত্তক নেয়া সন্তান যে তাদের নিজের সন্তান নয় এসব কিছু ভুলেও তাকে বুঝতে দেয়া যাবে না। কোনো প্রকার অবহেলা করা যাবে না। অতিমাত্রায় শাসন করা যাবে না।

কেননা অতিরিক্ত শাসন তার মধ্যে অপরাধবোধ জাগিয়ে তুলবে এবং সে নিজেকে খাঁচায় বন্দী পাখির মতো মনে করবে। যেকোনো উপায়ে সেই খাঁচা থেকে উড়াল দিতে চাইবে। তখন হিতে বিপরীত দেখা দিবে। তাই দত্তক নেয়া সন্তানকে যত্ন করুন। তাকে সর্বদা গুরুত্ব দিন।

প্রত্যাখান

আপনি যদি কোনো নবজাতক শিশুকে দত্তক নিয়ে লালন পালন করেন তাহলে ভালো। তবে সে যদি বড় হয়ে জানতে পারে আপনি তার আসল বাবা কিংবা মা নন তাহলে তার মধ্যে নিদারুণ কষ্ট কাজ করবে। পৃথিবীর বুকে নিজেকে অসহায় মনে করবে। বাবা মা হিসেবে আপনাকে প্রত্যাখান করতে পারে। কেননা আপনি বা আপনারা তার আসল বাবা মা নন।

প্রত্যাখান; Source: Tiny Buddha

তার মধ্যে বার বার ঘুরপাক খাবে নানা নেতিবাচক অনুভূতি, কষ্টের অনুভূতি। আপনি চাইলেই সেগুলো তার মধ্যে থেকে দূর করতে পারবেন না। সে হয়তো ভাববে কে বা কারা তার আসল বাবা মা? কেন তারা তাকে দত্তক দিয়েছে? সে কি তাদের কাছে বোঝা স্বরূপ ছিল? তারা কি তাকে ঘৃণা করতো?

জন্ম সংস্কৃতির
জন্য শোকাহত

একজন দত্তক নেয়া সন্তানের কাছে যখন স্পষ্ট হয়ে ধরা পড়বে যারা তাকে লালন পালন করেছে তারা আসল বাবা মা নয় তখন তার মনে রাগ, ঘৃণা, ক্ষোভ, কষ্ট, বিষণ্ণতা গ্রাস করবে। কোথায় কোন পরিবেশে তার জন্ম হয়েছিল সে সম্পর্কে জানার জন্য উদগ্রীব হয়ে পড়বে। তার আসল দেশ, গ্রাম, জন্ম, গোষ্ঠী, ধর্ম কী বা কোথায় সেগুলো নিয়ে তার মনে প্রশ্ন জাগবে। কিন্তু সেগুলোর উত্তর সে পাবে না সঠিকভাবে।

শোকাহত কিশোর; Source: Adoptive Families

জীবন নামের অংকের সমীকরণ সঠিকভাবে মিলাতে পারবে না। হয়তো সে তার মাতৃভাষায় কথা বলার জন্য ব্যকুল হয়ে ওঠবে কিন্তু সে তো জানতেই পারবে না তার মাতৃভাষা কী ছিল। নতুন বাবা মাকে তার জন্মস্থান ও সংস্কৃতির কথা জিজ্ঞেস করলেও হয়তো তারা সঠিক ভাবে বলতে পারবে না।

দত্তক নেয়া সন্তান এত কিছু জেনে গেলে পালিত বাবা মা ভীষণ কষ্ট পাবে। কেননা তারা ছোট থেকে তাকে সন্তানের মতো স্নেহ, যত্ন করে লালন পালন করেছে।

পরিচয়হীনতা

দত্তক নেয়া সন্তানের মধ্যে পরিচয়হীনতা কাজ করে। তার মনে অবাধ দুঃখের জন্ম দেয় পরিচয় না থাকার এই ব্যাপারটি। সে জানতে চাইবে তার আসল বাবা মা, ভাইবোন, আত্মীয় স্বজন সম্পর্কে। বারংবার এ সকল প্রশ্নগুলো তার মধ্যে ভিড় করবে।

বিষণ্ন কিশোরী; Source: breakthroughpsychologyprogram.com

সে যে পরিবারে জন্মগ্রহণ করেছিল সেটি আসলে কেমন ছিল, জীবনে একবার হলেও আসল বাবা মায়ের চেহারা দেখার তীব্র বাসনা তার মনে বাসা বাধবে। তার জন্মটা সত্যিই কি বৈধ ছিল এই ব্যাপারে মনে প্রশ্ন জাগে। পালিত বাবা মা তাকে যতই বোঝাক না কেন তার মনে এসব দুঃখ থেকে যাবে।

একাকীত্বতা

গবেষণায় বলা হয়েছে দত্তক নেয়া সন্তানেরা একাকীত্বতায় ভোগে। বিশেষ করে কৈশোরকালে তারা নিজেকে খুব একা ভাবে। তাই তারা হতাশায় নিমজ্জিত হয়ে যায়। তাছাড়া পালিত বাবা মায়ের কাছে তারা অনিরাপত্তায় ভোগে।

Featured Image Source: Pond5

লেখক – Rikta Richi

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here