শিশুরা দূরন্ত প্রকৃতির হয়। তারা লাফাতে ভালবাসে, ভালবাসে খেলতে। যতক্ষণ শরীরে শক্তি আছে ততক্ষণ খেলাধুলা ও ছুটোছুটি নিয়ে ব্যস্ত থাকতে চায় তারা। ছুটতে ছুটতে তাদের মাঝে মাঝে অসুখ-বিসুখ হয়ে যায়। শিশুদের রোগ ব্যাধি হওয়াটা খুব স্বাভাবিক। কারণ তাদের শরীরে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা কম থাকে। যার ফলে সহজে ভাইরাসকে প্রতিরোধ করতে পারে না।

শিশুদের পেটে অনেক সময় ব্যথা হয়। পেটের ব্যথা তেমন ভয়াবহ হয় না। শিশুদের পেটে ব্যথা হলে অনেক সময় অভিভাবকেরা ঘাবড়ে যায় এবং সরাসরি চিকিৎসকের কাছে নিয়ে যায়। তবে পেটে ব্যথা হলে অনেক সময় অন্য কোনো অসুস্থতার লক্ষণ প্রকাশ পায়।

শিশুদের পেটে ব্যথা হওয়ার কারণ

শিশুদের পেটে ব্যথা নানা কারণে হতে পারে। বেশিরভাগ সময় এটি খুব সিরিয়াস হয় না। তবে কোনো ব্যথাকে হেলা করা উচিত নয়। সাধারণত ফুড এলার্জি থেকে, পেটে গ্যাস হলে, খাবারের বিষক্রিয়া থেকে, কোষ্ঠকাঠিন্যের কারণে শিশুদের পেটে ব্যথা হয়। গ্যাট ফ্লু (গ্যাস্ট্রোটেনেরাইটিস) একটি ভাইরাস যা ব্যাকটেরিয়া দ্বারা সৃষ্ট হতে পারে,  যার ফলে তীব্র পেট ব্যথা, বমি ও ডায়রিয়া হয়ে থাকে। তলপেটে ব্যথা হলে বমি বমি ভাব হয়, মাথা ঘোরায়।

শিশুর পেটে ব্যথা; Source: FirstCry Parenting

তাছাড়া বিষাক্ত কোনো পোকা কামড় দিলে ব্যথা হতে পারে। খেলার সময় যদি পিপীলিকা, লাল পিঁপড়া, মৌমাছি কামড় দেয় তাহলে ব্যথা হবে। তাই কেন শিশুর পেটে ব্যথা হচ্ছে তার কারণ বের করুন। ব্যথা যদি একদিন বা চব্বিশ ঘণ্টার বেশি হয় তাহলে চিকিৎসকের কাছে নিয়ে যাওয়া উচিত।

শিশুদের পেটে ব্যথা হওয়ার আরো কিছু গুরুতর
কারণ

অ্যাপেনডিসাইডস, জীবাণু ও অন্যান্য কারণে শিশুদের পেটে ব্যথা হতে পারে। প্রস্রাবে ইনফেকশন হলে, পেটের ভেতরে টিউমার হলে, গলব্লাডারে পাথর হলে, হঠাৎ করে বিষাক্ত কোনো কিছু খেয়ে ফেললে বিষক্রিয়া থেকে পেটে ব্যথা হতে পারে। শিশুদের পেটে পাথর কিংবা টিউমার হলে প্রচণ্ড পেটে ব্যথা করবে।

ব্যথায় কাতর শিশু; Source: FirstCry Parenting

আলসার, হজমজনিত সমস্যা হলেও পেটে ব্যথা হতে পারে। ছোট শিশুরা তাদের অনুভূতি ও কষ্টের কথা বোঝাতে পারে না। কেননা তারা অনুভূতি প্রকাশ করতে জানে না। অপেক্ষাকৃত বড় শিশুরা তাদের অনুভূতি প্রকাশ করতে পারে। তার কথা শুনে অভিভাবকেরা সঠিক চিকিৎসা গ্রহণ করতে পারে।

কখন চিকিৎসকের কাছে যাওয়া উচিত

পেটের ব্যথা যদি গুরুতর হয় তাহলে চিকিৎসকের কাছে যাওয়া উচিত। যদি একদিনের বেশি সময়  থেকে শুরু করে এক সপ্তাহ পর্যন্ত ব্যথা স্থায়ী হয় তাহলে চিকিৎসকে কাছে নিয়ে যাওয়া উচিত।

ব্যথা যদি একপাশ থেকে অন্যপাশে চলে যায়, ব্যথা যদি পেটের চারপাশে অনুভূত হয়, শ্বাস নিতে যদি কষ্ট হয়, চেহারা দেখে যদি আতঙ্কিত মনে হয়, বমির সাথে যদি রক্ত পড়ে, প্রস্রাব করতে যদি সমস্যা হয়, ত্বকে র‍্যাশ উঠলে, ডায়রিয়া যদি দুই দিনের বেশি সময় ধরে থাকে তাহলে সন্তানকে দ্রুত চিকিৎসকের কাছে নিয়ে যাওয়া উচিত। তাছাড়া ওজন কমে গেলে, পেটে হাত দিলে যদি শক্ত কিছু অনুভূত হলেও চিকিৎসকের শরণাপন্ন হওয়া উচিত।

বাসায় বসে যেভাবে শিশুর যত্ন নেবেন

আপনার সন্তানের যদি অজানা কারণে পেট ব্যথা
হয় তাহলে তার জন্য সেটি সহ্য করা কষ্টকর হবে। আপনার সন্তানকে নিম্নের পদ্ধতিগুলো
অনুসরণ করতে বলুন।

  • উপুড় হয়ে শুয়ে থাকতে
    বলুন।
  • পা থেকে মাথা পর্যন্ত
    সোজা রেখে শুয়ে শুয়ে নিঃশ্বাস নিতে বলুন।
  • মলমূত্র ত্যাগ করতে
    বলতে পারেন।
  • পেটের ব্যথা না কমা
    পর্যন্ত আপনার সন্তানকে কঠিন ও শক্ত খাবার দেবেন না।
  • ব্যথা কমে গেলে নরম
    খাবার খেতে দিন।
  • আপনার সন্তানের পেট
    ব্যথা রোধে দ্রুত এসপিরিন, অ্যাসিটামিনফেন, টাইলেনন বা আইব্রুপোফেন দেবেন না।
    নির্দিষ্ট সময় পর্যন্ত অপেক্ষা করুন।

পেট ব্যথা রোধে ঘরোয়া চিকিৎসা

পেট ব্যথা হলে শিশুদের কষ্ট হওয়াটা
স্বাভাবিক। দ্রুত যদি কোনো চিকিৎসা দিতে না চান তাহলে আপনার সন্তানকে ঘরোয়া
চিকিৎসা দিতে পারেন। কারণ গুরুতর কোনো কারণে পেট ব্যথা না হলে ঘরোয়া চিকিৎসার
মাধ্যমে তা দূর হবে।

পুদিনা পাতা

পুদিনা পাতা স্বাস্থ্যকর। এর সালাদও বেশ স্বাদের হয়। পুদিনা পাতা অনেক রোগের জন্য উপকারী। পেটের ব্যথা দূর করার জন্য আপনার সন্তানকে পুদিনা পাতা চিবিয়ে খাওয়ার পরামর্শ দিতে পারেন।

পুদিনা পাতা; Source: Natural Food Series

পুদিনা পাতা খেলে ধীরে ধীরে পেট ব্যথা কমে যাবে। আপনার সন্তান যদি পুদিনা পাতা চিবিয়ে না খেতে পারে তাহলে এক গ্লাস পানিতে কয়েকটি পাতা ডুবিয়ে রেখে সে পানি খেতে দিন।

লেবুর রস

লেবুর রস স্বাস্থ্যের জন্য খুব উপকারী। হজমজনিত সমস্যা দূরীকরণ থেকে শুরু করে ওজন কমাতেও সাহায্য করে লেবুর রস। আপনার সন্তানের যদি পেটে ব্যথা হয় তাহলে তাকে চিনি ছাড়া লেবুর রস বা লেবুর শরবত খাওয়াতে পারেন।

লেবুর শরবত; Source: Natural Food Series

লেবুর রস খেলে পেটের পীড়া চলে যাবে। হালকা গরম পানিতে লেবুর রস মিশিয়ে আপনার সন্তানকে খেতে দিন। তবে তার যদি অ্যাসিডিটির কারণে বমি হয় তাহলে লেবুর রস খাওয়ানোর দরকার নেই।

মৌরি

মৌরি পেটের ব্যথা, হজমের সমস্যা, গ্যাসের
সমস্যা দূর করে। সন্তানের পেটে ব্যথা হলে মৌরি খেতে দিতে পারেন।

আদা

আদার উপকারিতা অনেক। আদায় রয়েছে প্রদাহের বিরুদ্ধে লড়াই করার প্রাকৃতিক উপাদান যা পেট ব্যথা দূর করতে, হজম সমস্যা দূর করতে সহায়তা করে।

আদা; Source: drweil.com

এক টুকরো আদা স্লাইস করে কেটে আপনার সন্তানকে খেতে দিন। এছাড়া আদার চা বানিয়ে সন্তানকে খাওয়াতে পারেন।

দই

আপনি হয়তো ভাবতে পারেন দই কীভাবে পেটে ব্যথা কমায়। দইয়ে রয়েছে প্রোবায়োটিক উপাদান যা হজমে সহায়তা করে, পেট ব্যথা দূর করে।

Featured Image Source: Parenting

লেখক – Rikta Richi

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here