ঢাকায় বসবাসরত অধিবাসীদের জন্য বাসা পরিবর্তন করা অতি গুরুত্বপূর্ণ একটি কাজ। কেননা কিছুদিন পরপর বা কয়েক মাস পরপর অথবা কয়েক বছর পরপর বাসা পরিবর্তন করার প্রয়োজন হয়। বিশেষ করে যারা ভাড়া বাসায় থাকে তাদের বাসা পরিবর্তন করতে হয়।

ঢাকায় বসবাসরত ব্যক্তিদের জন্য বাসা পরিবর্তন করা অনেক সময় চ্যালেঞ্জিং হয়ে যায়। এটি খুব বিরক্তিকর কাজও বটে। যেসব বাসায় ছোট বাচ্চা রয়েছে তাদের জন্য বাসা পরিবর্তন করা অত্যন্ত জটিল কাজ। কারণ শিশুরা সব সময় দুরন্ত হয়ে থাকে। তারা অস্থির হয়ে থাকে। যেকোনো কাজ তাদের জন্য সামলানো কঠিন হয়ে পড়ে।

বাসা পরিবর্তন; Source: Movers

তাছাড়া একই বাসায় দীর্ঘদিন বসবাস করার ফলে শিশুদের সাথে অনেকের বন্ধুত্ব ঘটে। শিশুরা তাদের পুরনো বন্ধুদের ছেড়ে নতুন কোথাও মিশতে পারে না। যার ফলে তারা নতুন কোন বাসায় যেতে আগ্রহী থাকে না। তারা নতুন পরিবেশে মানিয়ে নিতে পারে না। তবে আপনার যদি কিছু দিকনির্দেশনা থাকে কিংবা আপনি যদি বুদ্ধি মত কাজ করতে পারেন তাহলে বাসা পরিবর্তন করা আপনার জন্য সহজ হবে। জানতে চান কীভাবে? নিম্নোক্ত আলোচনা থেকে জেনে নিন।

প্রথমে চাই আলোচনা

একটি গৃহ বা  বাসা যেহেতু শিশুর জন্য নিরাপদ স্থান সেহেতু বাসা নির্বাচনে শিশুর আরামবোধের বিষয়টি মাথায় রাখতে হবে। শিশুকে বোঝাতে হবে নতুন বাসায় পুরনো বাসার চেয়ে অনেক বেশি সুযোগ-সুবিধা পাওয়া যাবে। নতুন বাসায় আরো নতুন নতুন বন্ধু তৈরি হবে। নতুন নতুন মানুষের সাথে পরিচয় হবে। নতুন বাসা যদি আগের বাসা থেকে বেশি দূরে না হয় তাহলে সন্তানকে বোঝান পুরোনো বাসায় এসে কিংবা পুরনো বাসার বন্ধুদের সাথে ছুটির দিনে খেলাধুলা করা যাবে। তাহলে আপনার সন্তান নতুন বাসায় গিয়ে মন খারাপ করবে না।

প্যাকিং ঠিক আছে কিনা তা দেখা; Source: Homes By Esh

সে নতুন বাসায় গিয়ে নতুনভাবে নিজেকে অন্যদের সাথে মানিয়ে নেওয়ার চেষ্টা করবে। শিশুকে সামাজিকতা শেখানো, অন্যদের সাথে মিশতে শেখানো বাবা-মায়ের দায়িত্ব ও কর্তব্যের মধ্যে পড়ে। বাবা মা যদি শৈশব থেকে শিশুকে অন্যের সাথে মিশতে বাধা দেয় তাহলে শিশু কখনো সামাজিকতা শিখবে না। 

প্রাক বিদ্যালয়গামী ও বিদ্যালয়গামী শিশুদের নিয়ে বাসা পরিবর্তন করার কিছু টিপস

যদিও প্রাক বিদ্যালয়গামী ও বিদ্যালয়গামী শিশুরা অনেক ছোট থাকে তবুও তাদের নিয়ে বাসা পরিবর্তন করা যায়। তাদের কাছে এ বিষয়টি অভিনব ও মজাদার করে তুলতে হবে। কেননা শহরে বসবাস করতে গেলে কোনো না কোনো একসময় বাসা পরিবর্তন করতে হয়। যদি বাড়ির মালিক হয়ে থাকেন তাহলেও জীবনে একবার হলেও বাসা পরিবর্তন করতে হবে।

সন্তানদের সঙ্গে নিয়ে কাজ সম্পন্ন করা; Source: Ireland Before You Die

অনেক সময় চাকরি, ব্যবসা কিংবা পড়াশোনার অন্যান্য কাজে এক স্থান থেকে অন্য স্থানে যাতায়াতের কারণে বাসা পরিবর্তন করতে হয় কিংবা এক শহর থেকে অন্য শহরে যেতে হয়, সে সময় সন্তানকে যে সব বিষয়ে ভালো করে বোঝাতে হবে এবং যে বিষয়গুলো আপনার মাথায় রাখতে হবে সেগুলো হলো :

  • বাসা পরিবর্তনের ব্যাপারে শিশুকে স্বচ্ছ ও সহজ ধারণা দিন।
  • শিশুর কক্ষে কখনো গাদাগাদি করে মালামাল রেখে দেবেন না। নতুন বাসায় গিয়ে মালামাল যথাযথ স্থানে যত তাড়াতাড়ি সম্ভব রেখে দিন। কেননা শিশু যেকোনো সময় আঘাত পেতে পারে এবং ব্যথা পেতে পারে। তাছাড়া শিশুর কক্ষে অনেক আসবাব একত্রিত করে রাখলে খুব বিশৃঙ্খল পরিবেশ সৃষ্টি হবে এবং এটি শিশুর অস্বস্তির কারণ হতে পারে। তাই যথাসম্ভব মালামাল গুছিয়ে রাখুন।
  • শিশুরা খেলনার প্রতি খুব বেশি মনোযোগী থাকে এবং খেলনা নিয়ে খুব সংবেদনশীল থাকে। তাই শিশুকে বোঝান মালামাল প্যাক করার সময় কোন খেলনা আপনি ফেলে দেবেন না বরং প্রতিটি খেলনা সুন্দর করে প্যাক করবেন। তাহলে শিশু মনে কষ্ট পাবে না এবং আপনার প্রতি বিশ্বাস রাখবে। আপনার সন্তানকে বোঝান বাসা পরিবর্তন করা মানে তা জীবনে বড় কোনো পরিবর্তন নয়, এটি জীবনের খুব সাধারণ একটি বিষয়।
  • বাসা পরিবর্তনের ব্যাপারটি আপনার সন্তানের কাছে মজাদার ও উপভোগের বিষয় করে তুলুন।
  • আপনার বাচ্চা যদি অনেক ছোট হয় তাহলে বেবি সিটার এর ব্যবস্থা করুন। আপনার নতুন বাসা যদি আগের বাসার কাছে হয় কাছাকাছি হয় তাহলে বাসা পরিবর্তনের আগে কয়েকবার আপনার ছোট সন্তানকে সঙ্গে নিয়ে যেতে পারেন। তাহলে আপনার সন্তান আগে থেকে বাসা সম্পর্কে জানবে। প্রয়োজনে নতুন বাসার সামনে উপভোগ্য কোনো খেলনা ঝুলিয়ে রাখতে পারেন যেন সন্তান যাওয়ার সঙ্গে সঙ্গে সেটি উপভোগ করতে পারে।

সন্তানদের
নিয়ে বাসা পরিবর্তন করার আরও কিছু টিপস

বাসা পরিবর্তন করা যেহেতু ঝামেলার কাজ সেহেতু আপনি আপনার পরিবার ও বন্ধুদের সাহায্য নিতে পারেন। এতে আপনার কাজ অনেক সহজ হয়ে।

বন্ধুদের সাহায্য কামনা

সন্তানকে সঙ্গে নিয়ে আপনার যদি বাসা পরিবর্তন করা কষ্টদায়ক হয় তাহলে আপনার নিকটতম কোন বন্ধুকে সাহায্যের জন্য ডাকতে পারেন।

খানিক দুষ্টুমি; Source: letsgocleaning.com

আপনার সন্তানকে উচ্ছাস ও আনন্দের মধ্যে রাখার জন্য আপনার বন্ধুর সাহায্য নিতে পারেন।

সন্তানকেও
সম্পৃক্ত করুন

বাসা পরিবর্তন করার সময় ছোট ছোট কাজগুলোর জন্য আপনার সন্তানকে সম্পৃক্ত করতে পারেন।

বাসা পরিবর্তনের কাজে সন্তানদের সম্পৃক্ততা; Source: Irish Examiner

যেমন তার বইগুলো নিজের মতো গুছিয়ে রাখা, ছোটখাটো জিনিসগুলো বা খেলনাগুলো তার ব্যাগে ঢুকিয়ে দেওয়া ইত্যাদি।

বিদায়
পার্টি

পুরনো বাসা থেকে যখন নতুন বাসায় যাবেন তার আগে একটি বিদায় সংক্রান্ত পার্টি করতে পারেন। এভাবে পুরনো বন্ধু ও প্রতিবেশীদের সাথে আপনার ও আপনার সন্তানের বিদায় ক্ষণটি স্মরণীয় হবে।

Featured Image Source: Swoffers

লেখক – Rikta Richi

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here